চুনখোলা ইউনিয়ন, মোল্লাহাট

মুক্ত বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়াত্ত উইকিপিডিয়া
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
চুনখোলা ইউনিয়ন, {{{উপজিলা}}}
মাপাহান

{{{উপজিলা}}}র মা চুনখোলা ইউনিয়নগ
উপজিলা [[]]
জিলা [[]]
বিভাগ খুলনা বিভাগ
প্রতিনিধি
চেয়ারম্যানগ পৌ নেই
পরিসংখ্যান
গাঙ ১২ হান
মৌজা ১৩ হান
লয়াগ
 - পুল্লাপ
 

৫৪১৬ একর (২৫.৯ বর্গ কিমি)
ঘর ২৮২৭ গ
জনসংখ্যা
 - পুল্লাপ
 -বেয়াপা
 -মুনি

১৫,৩৪০ গ (মারি ১৯৯১)
৭৪২৬ গ
৭৪১২ গ
শিক্ষারহার ৭১% %
সরকারী পৌ চুনখোলা ইউনিয়নর সরকারী তথ্য

চুনখোলা ইউনিয়ন (ইংরেজি:Chunkhola), মোল্লাহাট উপজেলার বাগেরহাট জেলার খুলনা বিভাগর ইউনিয়ন চুনখোলাকে মোল্লাহাট উপজেলার মা বলা হয়। প্রচলিত তথ্য অনুসারে চুনখোলা মোল্লাহাটের মধ্যে সবচেয়ে প্রাচীন নগরকেন্দ্র।খ্রিস্টপূর্ব ২০০ অব্দেও চুনখোলাকে যশোরের অঙ্গীভূত একটি মনস(থানা) হিসাবে পাওয়া যায়। তখন চুনখোলাকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠে চুনালী সভ্যতা। চুনালী সভ্যতার ধ্বংসাবশেষ পাওয়া যায় ১৯৯৪ সালে। তবে এখনও জাতীয়ভাবে স্বীকৃতি দেওয়া হয় নি। ইংরেজরা চুনখোলা গমন করেছিলেন। কিন্তু কালের বিবর্তনে এই সভ্যতা হারিয়ে যায়। কিন্তু প্রাণকেন্দ্র হিসাবে চুনখোলা এখনও সবার মনে।

ভৌগলিক উপাত্ত[পতিক]

আয়তনহান: ৫৪১৬ একর (২৫.৯বর্গ কিলোমিটার)। ইউনিয়ন এ গত ২৮২৭ গ ঘর ইউনিট আসে। চুনখোলা ইউনিয়ন সাচিয়াদহ, চুনখোলা এম.বি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জন্য নামটি মোল্লাহাট উপজেলায় প্রথমে সবার চোখে পড়ে। এটি ১৯১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত যখন মোল্লাহাট উপজেলায় কোনো স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয় নি। এই বিদ্যালয় উত্তরে কালিয়া উপজেলা, পশ্চিমে তেরখাদা উপজেলা,দক্ষিনে রুপসা। এই বিদ্যালয় তখন তিন মহাকুমার প্রাণ বা শিক্ষাকেন্দ্র বলা হতো।

চৌদ্দাহান[পতিক]

মুঙেদে: --- ইউনিয়ন।

পিছেদে: --- ইউনিয়ন।

খায়েদে: --- ইউনিয়ন।

ঔয়াঙেদে: --- ইউনিয়ন।

জনসংখ্যার উপাত্ত[পতিক]

বাংলাদেশের ২০১১ (লোক গননা) চুনখোলা ইউনিয়নর জনসংখ্যা ২৮,৭৮৯ জন ।[১] পুরুষ ৫১% এবং নারী ৪৯%। ইউনিয়ন এ গত ১৮ বসর গজে ৭৪১২ লহঙ করিসিতা ২৩২৮গ বেয়াপা (১৫-৪৪ বসর) আসি। চুনখোলা ইউনিয়নর সাক্ষরতার হার ৭৪.৫% । বাংলাদেশের সাক্ষরতার হার ৭২%


ইতিহাস[পতিক]

ইতিহাস

চুনখোলা ছিল অত্র এলাকার সভ্যতার কেন্দ্র বিন্দু। এখানে এক বিশাল নদীবন্দর ছিল, ব্যবসায়ী মোকাম ছিল,১৯১৬সাল থেকে আছে মাধ্যমিক বিদ্যালয়।  ছিল তৎকালিন ভুমি অফিস, মানে জমিদারের কার্যালয়।

অর্থাৎ  চুনখোলা থেকেই অত্র এলাকার সকল সভ্যতার জন্ম। তাই চুনখোলাকে মোল্লাহাটের জননী বলাহয়।

গাঙ বারো মৌজা[পতিক]

ইউনিয়ন এগত গাঙ: ১২ হান বারো মৌজা: ১৩

ফসল[পতিক]

প্রধান ফসল বলতে পান। চুনখোলাকে মোল্লাহাট উপজেলার পানের রাজধানী বলা হয়। তবে ১০-১৫ বছর আগে এ গ্রামে ধান, আখ, গম, পাট ছিলো প্রধান ফসল। বর্তমানে টমেটো,করলারও প্রচুর চাষ হচ্ছে।

বিখ্যাত ব্যক্তি[পতিক]

মোল্লা জাহাঙ্গীর হোসেন (পুলিশ সুপার), অনাদী সরকার(শিল্পী) , মোল্লা আজাদ হোসেন(ভারপ্রাপ্ত এসপি),মুকুন্দ বিহারী মল্লিক, শিকদার ওয়ালিদ হোসেন, ভূইয়া হেমায়েত উদ্দিন,মুন্সী তানজিল হোসেন,শরীফ মাহতাব উদ্দিন,মোল্লা বাবুল হোসেন, শেখরচন্দ্র মোহান্ত, মুকুন্দ মোহান্ত, বলাই শরীফ প্রমূখ।

তথ্যসূত্র[পতিক]

  1. বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (BBS). পাসিলাঙতা জুলাই ২, ২০১৮.


Flag of Bangladesh.svg   বাংলাদেশর স্থানীয় সরকারর প্রশাসনর ইউনিয়নয়র বারে লইনাসে নিবন্ধ আহান, লইকরানিত পাঙকরিক।